মোটিভেশন

সুন্দর করে কথা বলার কলাকৌশল

সুন্দর করে কথা বলার কলাকৌশল, পর্ব ১ঃ-

১)কথা দিয়ে মানুষকে যেমন বশ করা যায়, তেমনি বেফাস কথা বিরাট ক্ষতির কারন হতে পারে। কাজে কথা বলার আগে চিন্তা করুন, কি কথা বলছেন, কার সাথে বলছেন। ভাবিয়া বলিও কথা, বলিয়া ভাবিও না।

২)কথা বলার সময় সবসময় ছোট বাক্য ব্যবহার করুন। বড় ধরনের জটিল বাক্য শুনতেই শ্রুতিকটু হয়।

৩)যখন কোথাও আপনি মতামত প্রদান করবেন, তখন অন্তত সাধারণ তুলনায় ১০% জোরে কথা বলবেন।

৪)ফলপ্রসূ যোগাযোগ স্থাপন করতে চাইলে নির্দিষ্ট বিষয়ের উপর আলোচনা করুন।

৫)কোন কাজে ভুল হলে সেটা স্বীকার করুন, অদক্ষ লোকজন নিজের ভুল স্বীকার করবে, আপনার সাথে তর্কে জড়িয়ে পড়বে, কোন ভাবেই তারা নিজেদের ভুল স্বীকার করবে না।

৭) দক্ষ লোকজন ভুল হলে সাথে সাথে স্বীকার করবে। তারা তাদের ভুল থেকে শিক্ষাগ্রহণ করে। একই ভুল তারা কখনো ২য় বার করে না।

৮)অন্যরা আপনার কথা কেমন শোনে, আপনাকে কতটুকু বিশ্বাস করে, আপনার কথা কতটুকু গুরুত্ব দে, আপনার দিক নির্দেশনা কতটুকু অনুসরণ করে এইসব কিছুর মাধ্যমে আপনার গ্রহনযোগ্যতা তৈরি হয়। এই গ্রহনযোগ্যতা রাতারাতি আসে না। এটা আসবে ধীরে। মানুষ কথা ও কাজ যাচাই বাচাই করে আপবার ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়। কাজেই এমন কিছু বলবেন না যা কিনা আপনার ব্যাপারে মানুষের মনে অনাস্থা তৈরি করে।

৯) যে কোন সমস্যায় পড়লে চুপ করে থাকুন। নিরবতা অনেক সময় অনেক কিছুর উত্তর দিয়ে দে।

১০) সবসময় হাসিখুশি থাকুন।

তথ্যসুত্রঃ কনিউনিকেশন নো প্রব্লেম বই।

রিলেটেড পোস্ট

Close