লাইফ স্টাইল

গরমে সুস্থ থাকার ৬ টি উপায়

এই গ্রীষ্ম জুড়ে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে বয়ে যাচ্ছে তীব্র তাপপ্রবাহ। এই তীব্র গরমে নিজেকে সুস্থ রাখা জরুরি। গরমে সুস্থ থাকতে বেশ কিছু পরামর্শ দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তাঁরা বলছেন, তীব্র গরমে স্বাস্থ্যের ওপরে যে প্রভাব পড়ে, এতে পানিশূন্যতা দেখা দিতে পারে। এ ছাড়া হিটস্ট্রোকের মতো সমস্যাও দেখা দিতে পারে।শরীর থেকে প্রতিনিয়ত বের হয়ে যাচ্ছে পানি এবং বেড়ে যাচ্ছে শরীরের তাপমাত্রা। এই গরমে নিজের শরীর ঠিক রাখতে খেতে হবে কিছু খাবার সেই সাথে মেনে চলতে হবে আরো কিছু নিয়ম কানুন। এই গরমে কী করতে পারেন, সে পরামর্শগুলো দেখে নিতে পারেন আমাদের এই আর্টিকেল থেকে। তাইলে চলুন জেনে নেই গরমে সুস্থ থাকার ৬ টি উপায় ঃ

১)পানি জাতীয় বা হাল্কা খাবার খেতে হবে, যেমন ঃ

শসা:
শসা ভিটামিন এবং মিনারেলস পরিপূর্ণ একটি সবজি। এর ৯৬ শতাংশ পানি। শসা ভিটামিন-কে, ভিটামিন-সি, ভিটামিন-এ, ফলিক এসিড, পটাশিয়াম এবং ম্যাঙ্গানিজের উত্তম উৎস। শসা কেবল শরীরকে ঠাণ্ডাই রাখে না, সতেজ অনুভূতিও দেয়।

ডাবের পানি :
ডাবের পানির মধ্যে রয়েছে প্রাকৃতিক ইলেক্ট্রোলাইট। এটি শরীরকে আর্দ্র রাখতে কাজ করে।

তরমুজ :
তরমুজ এমন একটি খাবার, এটি কেবল গরমে পাওয়া যায়। এটি শরীরকে ঠাণ্ডা রাখে। এর মধ্যে রয়েছে পানীয় উপাদান।

পুদিনা :
পুদিনার মধ্যে রয়েছে শরীর ঠাণ্ডা করার উপাদান। এটি শরীরকে সতেজ করে।

দই :
প্রবোটাইটিকস খাদ্য হিসেবে দই চমৎকার। গরমে এই খাবার তাৎক্ষণিক শক্তি দেয়। তাই এটিও রাখতে পারেন আপনার দৈনন্দিন খাদ্যতালিকায়।

লেবুপানি :
খুব গরমে এক গ্লাস লেবুপানি আপনাকে প্রশান্তি দেবে। এটা স্বাস্থ্যকর, পাশাপাশি শরীরকে ঠাণ্ডা রাখতেও কাজ করবে।

হালকা খাবার খান:
গরমে হালকা খাবার খাবেন। গরম ও ঝালযুক্ত খাবার পাকস্থলীর জ্বালাপোড়া বাড়ায়। তাই এ সময়টায় হালকা খাবার খাওয়াই ভালো। এ সময় সবুজ সবজি বেশি খান। এতে রয়েছে আঁশ। এটি শরীরকে সতেজ রাখতে সাহায্য করবে।

সবচেয়ে বড় কথা হলো, গরমে সুস্থ থাকতে চাইলে হালকা খাবার খেতেই হবে। সবুজ শাকসবজি, ফলমূল আর বিভিন্ন ধরনের শরবত খান।

২)পরিত্যাগ করুন চা, কফি ,অ্যালকোহল ও বিরত থাকুন ধূমপান থেকেঃ

কারো সিগারেটের অভ্যাস থাকলে ত্যাগ করুন সেটা। ধূমপানে শরীর আরো গরম হয়ে উঠবে। বাড়বে ত্বকের শুষ্কতা। বরং তার বদলে খান একটি করে ভিটামিন সি ট্যাবলেট। সজীব লাগবে নিজেকে।এছাড়াও চা, কফি, অ্যালকোহল এগুলো বিরূপ প্রতিক্রিয়া সৃষ্টি করবে আপনার শরীরে। বাড়িয়ে দেবে পানিশূন্যতা। আপনার তৃষ্ণা মেটাতে স্রেফ পানি পান করুন। অথবা কোমল পানীয়। চা, কফি বা অ্যালকোহল একেবারেই নয়।

৩)পানি পান করুন পেটপুরে ঃ

দুঃসহ গরমে ঘামের সাথে শরীর থেকে বেরিয়ে যায় প্রচুর পরিমাণে পানি। সেই পানি পূরণ করতে আপনাকে অনেক বেশি পানি পান করতে হবে। এ ছাড়া স্বাভাবিকভাবেই গরমে দেহের তাপমাত্রা বেড়ে যায়। শরীরের কোষগুলোকে সজীব রাখতে হলে চাই পানি। শরীরে পানির অভাব হলে মাংসপেশি ঠিকমতো কাজ করতে পারে না। তাই দুঃসহ গরমে যেখানেই থাকুন না কেন সাথে রাখুন প্লাস্টিকের বোতলভর্তি পানি।

৪) সূর্যের আলো থেকে নিজেকে আড়াল করুন ঃ

এড়িয়ে চলুন সূর্যালোক।
চেষ্টা করুন ছায়ার মধ্য দিয়ে চলতে। রোদে গেলে মাথায় রাখুন চওড়া ক্যাপ, স্কার্ফ অথবা ছাতা। রিকশায় চড়লে হুড উঠিয়ে চলুন। ত্বকে মেখে চলুন সানস্ক্রিন ক্রিম বা লোশন। রোদে বাইরে বেরোলেই সানগ্লাস পরে নেবেন। কিন্তু খেয়াল রাখবেন সানগ্লাসটি যেন চোখের সাথে চমত্কার ফিটিং হয়। বেছে নিন ধূসর অথবা সবুজ রঙের কাচ। বাদামি রঙের কাচ হলে ভালো হয়। এই কাচগুলো সূর্যালোক প্রতিহত করবে।

৫)গোসল করুন একাধিক বার ঃ

বিশেষজ্ঞরা বলেছেন গরমে নিজের শরীর ঠান্ডা রাখতে দিনে গোসল করুন একাধিক বাব।সবচেয়ে ভালো হয় যদি ঠাণ্ডা বাথটাবে চুপচাপ শুয়ে থাকেন এবং মাঝে মাঝে সেখানে ছুড়তে থাকেন হাত-পা। তা সম্ভব না হলে দিনে দু’তিনবার গোসল করুন। শরীরে তেলজাতীয় কিছু মাখবেন না। সময় একটু বেশি নিয়ে গোসল করুন।

৬) পারফিউম মাখুন দেখেশুনেঃ

যদি গরম বেশি পড়ে তাহলে ভারী ও কড়া গন্ধের পারফিউম মাখবেন না। কড়া পারফিউমে আপনার শরীরে গরম লাগার ভাব বেড়ে যাবে। এ সময় একেবারে হালকা গন্ধের পারফিউম মাখুন। কিছু কিছু পারফিউম আছে যা মাখলে শরীরে ঠাণ্ডা অনুভূত হয়। আজই খোঁজ করুন। এবং সেগুলো ব্যবহার করুন।

উপরে বর্নিত উপায় গুলো মেনে চলার মাধ্যমে আপনি এই গরমে থাকতে পারেন ফিট।আর আপনার বডি ফিট মানেই আপনি হিট। তাই ফিট ও হিট থাকতে আজ থেকে মেনে চলা শুরু করুন উপরের বর্নিত উপায় গুলো।।

সবাইকে অসংখ্য ধন্যবাদ।

রিলেটেড পোস্ট

Close